আমার শহর শিলিগুড়িঃ চলে গেলেন ইরফান খান, ২৪ ঘন্টা হতে না হতেই আরো একজন অন্যতম বলিউড নক্ষত্রের পতনে দেশ জুড়ে শোকের ছায়া। বৃহস্পতিবার ভোরে বলিউডের প্রথম রোমান্টিক নায়ক ঋষি কাপুর পরলোক গমন করেন।
১৯৫২ সালে ৪ ই সেপ্টেম্বর তাঁর জন্ম হয় বলিউডের বিখ্যাত কাপুর পরিবারে। তিনি শুধুমাত্র একজন অভিনেতাই ছিলেন না, সাথে প্রযোজক এবং পরিচালক হিসেবেও তিনি যথেষ্ট খ্যাতি অর্জন করেছিলেন। ১৯৭০ সালে তাঁর পিতা রাজ কাপুরের ছবি “মেরা নাম জোকারে” শিশু শিল্পী হিসেবে তাঁর অভিনয় জগতে আত্মপ্রকাশ। আর এই ছবিতে অভিনয় তাঁকে জাতীয় চলচ্চিত্রে পুরস্কার এনে দেয় । এরপর”ববি” ছবিতে ডিম্পল কাপাডিয়ার সাথে প্রথম প্রধান চরিত্রে অভিনয় করার সুযোগ পান যা দেশবাসীর মনে তাঁকে বিশেষ স্থান করে দেয়। ১৯৭৪ সালে এই ছবির জন্য তিনি ফিল্মফেয়ার শ্রেষ্ঠ অভিনেতার পুরস্কারও লাভ করেন। ১৯৭৩ থেকে ২০০০ সাল পর্যন্ত তিনি মোট ৯২টি রোমান্টিক ছবিতে প্রধান চরিত্রে অভিনয় করেন । ১৯৭৩ থেকে ১৯৮১ সাল পর্যন্ত তাঁর সহধর্মিনী নীতু সিং এর বিপরীতে মোট ১২টি চলচ্চিত্রে এক সাথে কাজ করেন।
তার সম্পুর্ন নাম “ঋষি রাজ কাপুর”। তিনি বিখ্যাত চলচ্চিত্র পরিচালক এবং নায়ক রাজ কাপুরের দ্বিতীয় সন্তান। তাঁর দুই ভাই জ্যেষ্ঠ রণধীর কাপুর এবং কনিষ্ঠ রাজীব কাপুরও বলিউডের অভিনেতা ছিলেন।
১৯৮০ সালের ২২ জানুয়ারী ঋষি কাপুর অভিনেত্রী নীতু সিংকে বিয়ে করেন। তাঁদের দুই সন্তান -অভিনেতা রণবীর কাপুর এবং ডিজাইনার রিধিমা কাপুর সাহানি । অসংখ্য ছবিতে অভিনয় তাকে প্রচুর সন্মানে ভূষিত করেছিল।
১৯৭০ – বাংলা চলচ্চিত্র সাংবাদিক সমিতির বিশেষ পুরস্কার।”মেরা নাম জোকার” ছবির জন্য জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার।
২০০৯ – চলচ্চিত্রে অবদানের জন্য রাশিয়া সরকার কর্তৃক সম্মান প্রদান।
২০১০ – অপ্সরা ফিল্ম অ্যান্ড টেলিভিশন প্রযোজক গিল্ড অ্যাওয়ার্ডস।
লাভ আজকাল চলচ্চিত্রে শ্রেষ্ঠ সহ অভিনেতা।
২০১১ – জি সিনে পুরস্কার, শ্রেষ্ঠ আজীবন দম্পতি পুরস্কার ।
২০১৩ – দ্য টাইমস অব ইন্ডিয়া চলচ্চিত্র পুরস্কার। অগ্নিপথ চলচ্চিত্রে খলচরিত্রে অভিনয়ের জন্য শ্রেষ্ঠ অভিনেতা পুরস্কার।
২০১৬ – স্ক্রিন আজীবন সম্মাননা পুরস্কার।
তার শ্রেষ্ঠ ছবি গুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য -মেরা নাম জোকার, ববি, প্রেম রোগ,কর্জ,লায়লা-মজনু, অমর-আকবর-এন্টনী, সাগর, নসিব, নসিব-আপনা-আপনা, নাগিনা, চাঁদনী, দিওয়ানা, হেনা, প্রেম গ্রন্থ, দামিনী, ইত্যাদি। তিনি তার সমকালীন এবং তার পরবর্তী প্রায় সকল অভিনেত্রীর সাথেই অভিনয় করেছিলেন। রোমান্টিক চরিত্রে অভিনয় করবার জন্য তিনি দেশবাসীর মনে বিশেষ স্থান করে নিয়েছিলেন। তার প্রয়ানে বলিউড তথা দেশবাসী আজ শোকাহত।