বিশ্বে করোনায় প্রভাবিত দেশ গুলোর মধ্যে একটি হলো ফ্রান্স। করোনায় মহামারী মোকাবিলায় দীর্ঘদিন লকডাউন ছিল এই দেশ। কিন্তু লকডাউনের পর স্কুল খুলতেই ফ্রান্সে ৭০ জন নার্সারি ও প্রাইমারী স্কুলে পড়ুয়া শিশু করোনায় আক্রান্ত হয়। গত ১৮ ই মে এমনটাই জানিয়েছেন সেই দেশের শিক্ষামন্ত্রী জিয়ান মাইকেল ব্লানকোয়ের। এই ঘটনার পরই বিদ্যালয়গুলো জরুরি ভিত্তিতে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। শিক্ষামন্ত্রী বলেছেন, “লকডাউনের পর বিদ্যালয়ে ভালোই কাটছিলো শিশুদের দিন। কিন্তু শিশুরা যে আক্রান্ত হতে পারে সেটাও আশঙ্কা করা হচ্ছিল। যদিও খুব বেশি শিশু আক্রান্ত হয়নি। যেসব বিদ্যালয়ের শিশুরা আক্রান্ত হয়েছে সেগুলো জরুরিভিত্তিতে বন্ধ করা হয়েছে। অন্যান্য বিষয়েও কড়াকড়ি আরোপ করা হয়েছে।” লকডাউন তোলার পর ১১ ই মে থেকে খুলেছিল ফ্রান্সের ৪০ হাজার নার্সারি ও প্রাথমিক বিদ্যালয়। লম্বা বিরতির পর ১৪ লাখ শিশু ফেরে বিদ্যালয়ের আঙিনায়। মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৫০ হাজার ছাত্র-ছা’ত্রীরাও ১৮ ই মে থেকে যাওয়া শুরু করেছিল বিদ্যালয়ে। কিন্তু ৭০ জন নার্সারি ও পাইমারীতে পড়ুয়া শিশু করোনা আক্রান্ত হওয়ার বিষয়টি নিয়ে ফ্রান্সে যথেষ্ট উত্তেজনার সৃষ্টি হয়েছে।