আমার শহর শিলিগুড়িঃ করোনার মাঝেই ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড দিল্লিতে। বিধ্বংসী আগুনে পুড়ে ছাই হয়ে যায় ১৫০০ টি ঘর। মাঝ রাতে যখন সবাই গভীর ঘুমে আচ্ছন্ন টিক সেইসময়ই আগুন লাগে দক্ষিণ-পূর্ব দিল্লির তুঘলকাবাদের বস্তিতে। আগুনের বিধ্বংসী শিখা নিমেষে গ্রাস করে নেয় গোটা বস্তিকে। পুড়ে যায় বস্তির ১৫০০ টি ঘর।
যদিও আগুন লাগার সাথে সাথেই দিল্লি পুলিশ ও দমকল বাহিনী অত্যন্ত তৎপরতার সঙ্গে বস্তিবাসীকে অন্যত্র সরিয়ে নিয়ে যায়। ফলে প্রাণহানির কোনও ঘটনা ঘটেনি। দিল্লি দমকলের এক আধিকারিক জানিয়েছেন, রাত ১২টা ৫০ নাগাদ একটা ফোন আসে এবং তাতেই তারা আগুন লাগার খবর পায়। সঙ্গে সঙ্গে ঘটনাস্থলে ছুটে যায় দমকলের ২৮ টি ইঞ্জিন। যুদ্ধকালীন তৎপরতার খালি করা হয় বস্তি।
প্রায় ঘণ্টা তিনেকের চেষ্টায় সেই আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। অবশেষে ৩ টা ৪৫ নাগাদ আগুন নেভাতে সক্ষম হন দমকল কর্মীরা। কিন্তু ততক্ষণে পুড়ে ছাই হয়ে যায় বস্তির ১৫০০ টি ঘর। এই সঙ্কট মুহূর্তে পুড়ে ছাই হয়ে যায় বস্তিবাসীর মাথার ছাদটুকু এবং অতি কষ্টে জমানো তাদের সঞ্চয়।
তবে ক্ষয়ক্ষতির বিস্তারিত পরিমাণ এখনও জানা যায়নি। দক্ষিণ দিল্লির ডিসিপি জানান, মুহূর্তের মধ্যে প্রায় ১০০০ থেকে ১২০০ টি ঘরে আগুন লেগে যায়। তারপর আগুন ছড়িয়ে পড়ে । যদিও এখনও পর্যন্ত প্রাণহানির কোনও খবর পাওয়া যায়নি।