আমার শহর শিলিগুড়িঃ বিশ্ব জুড়ে করোনা মহামারীর বিরুদ্ধে লড়াইএর মাঝেই যুদ্ধের আভাস। যুদ্ধের পরিবেশ তৈরি করে মঙ্গলবার দেশের সেনাবাহিনীকে প্রস্তুত হওয়ার নির্দেশ দিলেন চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিংপিং। দেশের নিরাপত্তার স্বার্থে’ করোনার সমস্ত বিধিনিষেধকে উড়িয়ে দিয়ে চীনের লাজফৌজকে মহড়া শুরু করবার আদেশ দিয়েছেন তিনি। ‘জাতীয় সার্বভৌমত্ব রক্ষায় লালফৌজকে আরও শক্তিশালী যুদ্ধের জন্য প্রস্তুত করতে প্রশিক্ষণ এই মুহূর্তে খুব প্রয়োজনীয় হয়ে দাঁড়িয়েছে’ বলে মন্তব্য করেছেন চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং।
চীনের এই আগ্রাসী মনোভাবের ফলে আন্তর্জাতিক রাজনীতি ক্রমশ উত্তপ্ত হয়ে উঠছে। আন্তর্জাতিক নিয়ম নীতি ভেঙে ভারতে অনুপ্রবেশের চেষ্টা করছে চীনের লালফৌজ। পূর্ব লাদাখের লাইন অফ অ্যাকচুয়াল কনট্রোলের (LAC) আশপাশের এলাকায় ইতিমধ্যেই দুই থেকে আড়াই হাজার সেনাকর্মী মোতায়েন করেছে চীন। সেই সাথে ওই এলাকায় বেড়ে চলেছে চীনা ফৌজের অস্থায়ী ছাউনির সংখ্যা। LAC-তে চীনের এই ধরনের কার্যকলাপের ফলে ক্রমশ চড়ছে উত্তেজনার পারদ।
চীনের এই হুমকির জবাব দিতে ভারতও প্রস্তুত। ভারত মুখে কড়া অবস্থান নিয়েছে। সীমান্তবর্তী অঞ্চলে কোন রকম পরিবর্তনের চেষ্টা মেনে নেওয়া হবে না বলে স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।সংবেদনশীল এই এলাকায় সেনা জওয়ানদের সংখ্যাও বৃদ্ধি করেছে ভারত। এই পরিস্থিতি পর্যালোচনায় মঙ্গলবার সন্ধ্যায় চিফ অফ ডিফেন্স স্টাফ জেনারেল বিপিন রাওয়াত এবং তিন বাহিনীর প্রধানের সঙ্গে উচ্চ পর্যায়ের বৈঠক করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত দোভালও। ২০১৭ সালের ডোকলাম সংকটের পর পুনরায় এক বড় সংঘাতের দিকে এগোচ্ছে এই দুইদেশ। যদিও করোনা মহামারী সহ একাধিক কারনে আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে চীন সমগ্র বিশ্বে কোনঠাসা অবস্থায় রয়েছে। অনেকে মনে করছেন এই অবস্থায় সমগ্র বিশ্বে মনোবিজ্ঞান সন্মত ভাবে চাপ সৃষ্টি করাবার কারনেই চীনের এই রণ নীতি। তাই এক জটিল পরিস্থিতির মধ্যে দাঁড়িয়েও দেশের সেনাবাহিনীকে যুদ্ধের মহড়া শুরুর নির্দেশ দিলেন শি জিনপিং। এখন গোটা বিষয়টির মধ্যে দিয়ে তাকিয়ে সগগ্র বিশ্ব।