আমার শহর শিলিগুড়িঃ করোনা মহামারী মোকাবিলায় লকডাউননের কারনে সমগ্র দেশ জুড়ে পরিযায়ী শ্রমিকদের অবস্থা শোচনীয়। তাদের এই দুরাবস্থার বিষয়টি পর্যালোচনা করে বৃহস্পতিবার গুরুত্বপূর্ণ নির্দেশ দেন দেশের সর্বোচ্চ আদালত সুপ্রীম কোর্ট।
এই নির্দেশগুলো হলো-

⚫ পরিযায়ী শ্রমিকদের কাছে ট্রেন বা বাসের ভাড়া নেওয়া যাবে না। ভাড়ার ভাগ রাজ্য সরকারকেও নিতে হবে।
⚫ আটকে থাকা পরিযায়ী শ্রমিকদের সংশ্লিষ্ট রাজ্য সরকার ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল গুলি খাবার পরিবেশন করবে।
⚫ পরিযায়ী শ্রমিকরা যে রাজ্যের বাসিন্দা ট্রেন যাত্রাকালে সেই রাজ্যই তাদের জল ও খাবারের খরচ বহন করবে।
⚫ ট্রেন যাত্রাকালে পরিযায়ী শ্রমিকদের খাবার পরিবেশন করবে রেল কতৃপক্ষ। বাসেও খাবার পরিবেশনের ব্যবস্থা করতে হবে।
⚫ রাজ্য সরকারের দায়িত্বেই শ্রমিকদের নাম নথিভুক্তকরণ সম্পন্ন করে তাদের বাস বা ট্রেনে চাপানোর বিষয়টি নিশ্চিত করতে হবে।
⚫ কোন পরিযায়ী শ্রমিক হেঁটে বাড়ি ফিরছে এমন দেখা গেলে,সাথে সাথে তাদের আশ্রয় খাবার ও অন্যান্য সুযোগ-সুবিধা দেওয়ার ব্যবস্থা করতে হবে।

সুপ্রিম কোর্টের বিচারক অশোক ভূষণ, এসকে কউল এবং এম আর শাহ-কে নিয়ে একটি বেঞ্চ গঠন করা হয়। সেখানে আটকে থাকা পরিযায়ী শ্রমিকের বিস্তারিত তথ্য, তাদের নিজ জন্মস্থানে যাওয়ার পরিবহন ব্যবস্থা, পরিবহনের পরিকল্পনা, নাম নথিভুক্ত করণের পদ্ধতি প্রভৃতি বিষয়ে দ্রুত পদক্ষেপ গ্রহনের জন্য কেন্দ্র সরকারকেও নির্দেশ দেওয়া হয়। এছাড়াও এই বেঞ্চ জানায় যে রাজ্য সরকারের তরফ থেকে যখনই ট্রেন চাওয়া হবে তখনই রেল মন্ত্রককে ট্রেনের ব্যবস্থা করতে হবে।
পরিযায়ী শ্রমিকদের ব্যাপারে শীর্ষ আদালত প্রথম দিকে তেমন উৎসাহ না দেখালেও পরিযায়ী শ্রমিকদের এই করুন অবস্থা নিয়ে দেশব্যাপী তুমুল বিতর্ক শুরু হলে এই বেঞ্চ গঠন করতে বাধ্য হন।