“পার্লে-জি” – ভারতের অন্যতম বিস্কুট প্রস্তুতকারক সংস্থা। ভারতবর্ষে যার পথ চলা শুরু ১৯২৯ সাল থেকে। বিগত কয়েক মাসে রেকর্ড পরিমাণ ব্যবসা করল Parle সংস্থার অন্যতম বিস্কুটের ব্র্যান্ড ‘Parle-G’। ২০০৩ সালে বিশ্বের সবচাইতে জনপ্রিয় বিস্কুটের ব্র্যান্ডগুলির মধ্যে অন্যতম ছিল পার্লে । এই সংস্থার অন্যতম বিস্কুটের ব্র্যান্ড হল ‘Parle-G’। মাঝে ব্যবসা কমে গেলেও লকডাউনের বাজারে অসংখ্য অসহায় মানুষের খিদে মিটিয়ে এ বার রেকর্ড অঙ্কের ব্যবসা করেছে এই সংস্থা।
জানা গিয়েছে, গত ৮২ বছরে এই প্রথম লকডাউনের মধ্যে রেকর্ড পরিমাণ ব্যবসা করল Parle সংস্থার অন্যতম বিস্কুটের ব্র্যান্ড ‘Parle-G’। সংস্থা জানিয়েছে, মার্চ, এপ্রিল আর মে— এই তিন মাসে যা আয় হয়েছে, বিগত ৮২ বছরের কোনও কোন তিন মাসেই তা হয়নি।
এই ত্রৈমাসিকে ঠিক কত টাকার ব্যবসা করেছে Parle? এ বিষয়ে সস্পষ্ট করে কিছু জানায়নি সংস্থা। তবে সংস্থা জানিয়েছে, সব মিলিয়ে প্রায় ৫ শতাংশ শেয়ার এবার বেড়েছে Parle-র। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য ভাবে প্রায় ৯০ শতাংশ বিক্রি বেড়েছে Parle-G-এর। এই সাফল্যের কারন হিসেবে সংস্থা জানিয়েছে, বিগত কয়েক বছরে দেশের গ্রামীণ এলাকাগুলিতে Parle-G বিস্কুটের সরবরাহ বা জোগান যথেষ্ট বাড়িয়েছিল। লকডাউনের মধ্যেও সমস্ত স্বাস্থবিধি মেনে দেশের মোট ১৩০টি কারখানার মধ্যে ১২০ টিকেই সচল রেখেই তারা দিন রাত কাজ করে চলেছিল। কোথাও সে ভাবে Parle-র বিস্কুটের সরবরাহে ঘাটতি হয়নি। মহামারির আবহে প্রতিনিয়ত কাজ করে যাবার যথেষ্ট সুফল পেয়েছে এই সংস্থা।