করোনা ভাইরাস মহামারী মোকাবিলায় লকডাউনের কারনে বন্ধ হয়ে রয়েছে বীরভূমের তারাপীঠের মা তারার মন্দির। প্রতিদিন পুজো হলেও ভক্তদের জন্য মা তারার মন্দিরের দরজা এখনো বন্ধ। একইভাবে মা তারার রথযাত্রা নিয়েও ঘোর অনিশ্চিয়তা দেখা দিয়েছে। আগামী ১৪ জুন “মা তারা সেবাইত সংঘের” বৈঠকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে রথযাত্রা হবে কিনা। সেইসাথে জানানো হবে মা তারার মন্দির ভক্তদের জন্য কবে থেকে খুলে দেওয়া হবে। বীরভূমের পাঁচটি সতীপীঠ-এর মধ্যে চারটি সতীপীঠের দরজা ভক্তদের জন্য ইতিমধ্যে খুলে দেওয়া হয়েছে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে ভক্তদের পুজো দেওয়ার ব্যবস্থাও করা হয়েছে সেখানে। শুধুমাত্র বক্রেশ্বর এখনও পর্যন্ত বন্ধ রয়েছে। প্রতিবছর জগন্নাথদেবের রথযাত্রার দিন মাতারা রথে চেপে তারাপীঠ প্রদক্ষিণ করেন। সেই উপলক্ষে অসংখ্য ভক্তের ভিড় হয় সেদিন। এবছর পরিস্থিতি অন্যরকম। তাই রথযাত্রা হবে কিনা, সে বিষয়ে যথেষ্ট অনিশ্চয়তা রয়েছে।
করোনা সংক্রমণের কারনে ধর্মীয় স্থান থেকে যাতে কোনওভাবেই এই ব্যাধি গোষ্ঠী সংক্রমিত হতে না পারে তার জন্য সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসাবে দীর্ঘদিন ধরে বন্ধ ছিল দেশের সমস্ত ধর্ম প্রতিষ্ঠান। ১ জুন থেকে মন্দিরগুলো খুলে দিলেও তারাপীঠে মা তারার মন্দির এখনও পর্যন্ত ভক্তদের জন্য খুলে দেওয়া হয়নি। তবে সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসেবে সেখানে স্যানিটাইজার ট্যানেল বসানো হয়েছে। মা তারা সেবাইত সংঘের সভাপতি শ্রীতারাময় মুখোপাধ্যায় জানান -‘আগামী ১৪ জুন বৈঠকে বসে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে কবে থেকে মা তারার মন্দির ভক্তদের জন্য খুলে দেওয়া হবে। সেই সাথে এবছর রথযাত্রা হবে কী হবে না সেটাও বলে দেওয়া হবে।