নিউজ ডেস্কঃ কলকাতার সল্টলেকের বাসিন্দা রথীন্দ্রনাথ দাস ও গীতাঞ্জলি দাস। অন্যান্য দম্পতিদের মতো বাড়িতে থেকে সংসার করার ইচ্ছে তাদের মোটেই ছিল না। তাই বিয়ের পর থেকেই এই দম্পতি মোটরবাইকে বেরিয়ে পড়েন ভ্রমণে। বন্যপ্রাণীদের বাঁচানোর বার্তা দিতে দেশের নানা প্রান্তে ঘুরে বেড়াচ্ছেন তারা। বিয়ের পর রথীন্দ্রনাথ স্ত্রীকে নিয়ে প্রথম গিয়েছিলেন রাজস্থান। আর এবার স্ত্রীকে সঙ্গে নিয়ে বাইকে করেই ভারত–সহ পাড়ি দেবেন ১৩ টি দেশে। দেশে এবং পৃথিবীতে বাঘের সংখ্যা ক্রমশ কমে আসছে। যা ভবিষ্যতে পরিবেশের বাস্তুতন্ত্রের ক্ষেত্রে কূ প্রভাব ফেলবে। আর এই বাঘ বাঁচানোর বার্তা দিতেই ভারতের বিভিন্ন রাজ্য–সহ মায়ানমার, থাইল্যান্ড, মালয়েশিয়া, চীন, রাশিয়া–সহ আরও বিভিন্ন দেশে যাওয়ার পরিকল্পনা রয়েছে তার। এখনও পর্যন্ত ২৬০০ টি স্কুলে গিয়ে বাঘ এবং বন্যপ্রাণীদের বাঁচাতে শিবিরও করেছেন রথীন্দ্রনাথ। তবে এবারের সফর অনেকটাই তাদের কাছে চ্যালেঞ্জিং বলে জানালেন। তাদের পরিকল্পনা ৮০ হাজার কিলোমিটার বাইকে করে প্রদক্ষিণ করা।
তারা ১৫ ফেব্রুয়ারি যাত্রা শুরু করেছেন। দক্ষিণবঙ্গ ভ্রমণ করে রবিবার এসে পৌঁছান শিলিগুড়ি। সোমবার এখানে থেকে মঙ্গলবার বক্সার উদ্দেশে রওনা দেবেন। সেখানে প্রচার শেষে যাবেন কলকাতায়। সেখানে কয়েকদিন কাটিয়ে তারপর বিদেশের উদ্দেশে রওনা দেবেন। কোথাও বা জাহাজে বাইক নিয়ে সীমান্ত পার হবেন, আবার কোথাও বিমানে সওয়ার হবেন মোটরবাইক সহকারে। তিনি জানান দেড় বছরের এই ভ্রমণে তার খরচ পড়বে প্রায় ৪০ লক্ষ টাকা। আর্থিক সহযোগিতার জন্য তার বেশ কিছু বন্ধু এবং স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা এগিয়ে এসেছে বলে জানিয়েছেন রথীন্দ্রনাথ। সেই সাথে পাশে পেয়েছেন একটি অটোমোবাইল সংস্থাকে আর তারাই এই অভিযানের জন্য ২০০ সিসির বাইকটি দিয়েছে। তাদের এই অভিযানের নাম তারা রেখেছেন ‘‌জার্নি ফর টাইগার’‌।