রুহদ্রোনীল বসুঃ মাদককাণ্ডে গ্রেফতার করা হল রিয়ার ভাই সৌভিক চক্রবর্তী সহ স্যামুয়েল মিরান্ডাকে। শনিবার রিয়া চক্রবর্তীকেও ডাকা হতে পারে। নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরোর ( NCB) আধিকারিকদের জেরার মুখে ভেঙে পড়ে সৌভিক চক্রবর্তী। শেষপর্যন্ত সে স্বীকার করে নেয় যে সুশান্তের বাড়িতে রিয়ার নির্দেশেই আনা হত মাদক। আর সেই মাদক স্যামুয়েল মিরান্ডার মাধ্যমেই কেনা হত। একবার নয়,বহুবার রিয়ার নির্দেশে এই ড্রাগ আনা হয়েছে বলে NCB-কে জানায় সৌভিক। সৌভিকের স্বীকারোক্তির বেশকিছুক্ষণের পরই সৌভিক চক্রবর্তীর গ্রেফতারির খবর প্রকাশ্যে আসে। খুব শীঘ্রই সৌভিক ও মিরান্ডাকে আদালতে পেশ করা হবে বলেও জানায় তারা। এদিকে মাদককাণ্ডে সৌভিকের সঙ্গে যুক্ত বসিত, ভিলাত্রা, ফৈয়াজ এবং কাইজান নামে ৪ মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে NCB। তাঁরাও জেরায় সৌভিকের কথা স্বীকার করে নিয়েছেন বলে জানা যায়। এইমুহূর্তে খোঁজ চলছে অন্যতম মাদক ব্যবসায়ী ফারুক বাটাটার।
সৌভিক মুম্বইয়ের ব্যান্দ্রার একটি ফুটবল ক্লাবে মাদকের কারবার শুরু করে বলে জানা যায়। ব্যান্দ্রার ওই ফুটবল ক্লাবেই আবদুল বসিতের সঙ্গে পরিচয় হয় সৌভিক চক্রবর্তীর। এরপর বসিতের মাধ্যমেই মাদক পাচারকারী কাইজান আহমেদের সঙ্গে পরিচয় হয় তার। মাদক সরবরাহকারী আবদুল বসিত নিয়মিত রিয়াদের বাড়িতেও আসতেন বলে জানা যায়।