পায়েল সরকারঃ মঙ্গল গ্রহে গিয়ে পৃথিবীতে আর ফিরে আসবে না জেনেও মেয়েটি মানসিকভাবে প্রস্তুত। তিনি হলেন এলিজা কার্সন, নাসার কনিষ্ঠতম সদস্য। এই মেয়ের আগ্রহ, তৃষ্ণা আর ডেডিকেশন দেখে মাত্র ১১ বছর বয়সে নাসা তাকে মনোনীত করে নেয় এবং ঘোষণা করে যে পরিস্থিতি অনুকূল হলে সে হবে ২০৩৩ সালে মঙ্গলে যাওয়া পৃথিবীর প্রথম মানুষ। এখন তাঁর বয়স ১৭। যেহেতু সে মঙ্গলে গেলে ফিরে আসার সম্ভাবনা খুবই কম তাই নাসার কাছে সে জীবনের সব ইচ্ছা যেমন যৌনতা, বিয়ে বা সন্তানধারণের নিষেধাজ্ঞাপত্র তে সাক্ষর করেছে। সত্যিই ভাবতে অবাক লাগে, মানুষের স্বপ্ন কত কি থাকে। মানুষ যখন শুধু নিজেকে নিয়েই ব্যস্ত তখন মাত্র ১৭ বছর বয়সী এই মেয়ের ইচ্ছা শক্তি দেখলে সত্যিই মাথা নত হয়ে আসে। এলিজা জানে যে,
সে আর ফিরে আসবেনা এই পৃথিবীতে, আর মাত্র ১৪- ১৫ বছর পরে একমাত্র নিঃসঙ্গ মানুষ হিসেবে কোটি কোটি মাইল দূরের লোহার লালচে মরিচায় ঢাকা প্রচন্ড শীতল নিষ্প্রাণ গ্রহের ক্ষীয়মাণ নীল নক্ষত্রের নিচে হারিয়ে যাবে। সেই একা হারিয়ে যাওয়াই যেন তার কাছে আনন্দ। সেই আনন্দের কাছে পৃথিবীর এসব সাজানো সংসার প্রেম সন্তানাদি যেন কিছুই নয়।
এলিজা কার্সনের মত করে ভাববার ক্ষমতা কয়জনের আছে? এক কথায় সে আমাদের এক ভিন্ন স্বপ্ন দেখতে শেখায়।