শিবম চক্রবর্তীঃ জীবনযুদ্ধে লড়াই এর আর এক নাম শিলিগুড়ির ডাবগ্রাম ফুলবাড়ির সুরজিৎ ঠিকাদার। জন্ম থেকেই কুনুই এর বা হাতের নীচের অংশ নেই। মা কাজ করেন ১০০ দিনের প্রকল্পে। কিন্তু তবুও থেমে থাকেনি সুরজিৎ। স্বপ্নকে বাস্তব করবার লক্ষ্যে এক হাত নিয়েই চলে তাঁর কঠিন লড়াই। অধ্যাবসায় আর একাগ্রতার কারনেই সমস্ত প্রতিবন্ধকতাকে জয় করে সে সুযোগ করে নেয় বাংলা ক্রিকেট দলে। তাঁর এই লড়াইয়ে সে পাশে পেয়েছে তার দুই কোচ কৌশিক দাস এবং দীপঙ্কর গুপ্তকে। ২০১৭ সালে এই দুই কোচের অধিনে শক্তিগড়ের মাঠে খেলা শুরুর কিছুদিনের মধ্যেই সুরজিৎএর সুপ্ত প্রতিভার প্রকাশ ঘটতে শুরু করে। এরপর শিলিগুড়ির বিশেষভাবে সক্ষম জাতীয় দলের ক্রিকেটার আব্দুল খালেকের থেকে বাংলা ক্রিকেট দলে ট্রায়ালের খবর পায় সুরজিৎ। তার ইনসুইং এবং আউট সুইং দেখে মুগ্ধ নির্বাচকরা তাকে বাংলা দলে খেলতে নির্বাচন করে নেন। দ্বিতীয় ম্যাচেই আসামের বিরুদ্ধে ২ ওভার বল করে ৪ রান দিয়ে ৩ টি উইকেট তুলে নজর কেড়ে নেয় সুরজিৎ। এরপরেই শুরু হয় তাঁর এগিয়ে চলা। তবে তাঁর পাশে প্রতি মুহুর্তে রয়েছে তার দুই কোচ কৌশিক স্যার এবং দীপঙ্কর স্যার। সুরজিৎ রাজ্যের বাইরে খেলতে গেলে তাঁর সমস্ত ব্যয়ভার বহন করেন তাঁর দুই কোচ। শুধু তাই নয় তাঁর কোচিং এর সব দায়িত্ব সহ তাঁর ক্রিকেটের সমস্ত সরঞ্জাম দিয়েও তারা প্রতিনিয়ত সুরজিৎকে সাহায্য করে চলেছেন। শিলিগুড়ি সুপার ডিভিশন ক্রিকেটে জি টি এস এর হয়ে সই করলেও এখনো খেলেনি সে। সুর্যসেন মহাবিদ্যালয়ের প্রথম বর্ষের ছাত্র সুরজিৎ এর লক্ষ্য আব্দুল খালেকের সাথে জাতীয় দলে খেলা। শিলিগুড়ির গর্ব সুরজিৎ এর স্বপ্ন পুরণ হোক এই আশা আমাদের।