রুহদ্রোনীল পালঃ বিজেপির নবান্ন অভিযানে বলবিন্দর সিংয়ের কাছ থেকে আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধার করে পুলিশ। আগ্নেয়াস্ত্রটি লাইসেন্সপ্রাপ্ত বলে দাবি নিরাপত্তা কর্মী বলবিন্দরের। তিনি বিজেপি নেতা প্রিয়াঙ্গু পান্ডের ব্যক্তিগত দেহরক্ষী। এদিকে আগ্নেয়াস্ত্র বিতর্কের মাঝেই বলবিন্দরের পাগড়ি টেনে-হিঁচড়ে খুলে দেওয়ায় পুলিশ কর্মীদের প্রশ্নের মুখে দাড় করিয়ে দিয়েছে। বিজেপির শীর্ষ নেতৃত্ব, এমনকী শিরোমনি অকালি দলও এই ঘটনায় শিখ জাতিকে অপমান করা হয়েছে বলে মন্তব্য করে মামলা দায়ের করার দাবি জানিয়েছে। দিল্লির বিজেপি সাংসদ ইমপ্রীত সিং বক্সি এই ঘটনার তদন্ত করবার জন্য মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এর কাছে আবেদন করেছেন। ফলে পাগড়ি খোলা নিয়ে নয়া বিতর্কে জড়াল বাংলার পুলিশ।
শুধু তাই নয়, এই বলবিন্দর সিং ভারতীয় সেনাবাহিনীতে কার্গিলে কর্তব্যরত একজন প্রাক্তন সেনাকর্মী তথা প্রাক্তন NSG কমান্ডার। তাছাড়া তিনি একজন শিখ। যদিও বর্তমানে তিনি বিজেপি নেতা প্রিয়াংশু পান্ডের বডিগার্ড। যে পাগড়ি মুঘলদের সামনে খোলেনি শিখ সম্প্রদায়ের মানুষ। গতকাল সেই পাগড়ি খোলা হলো। এমনকি তাঁর চুলের মুটি ধরে টানা হ্যাচড়া করা হয়েছে। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে শুধু শিখ সম্প্রদায় নয়, গোটা দেশ জুড়ে শুরু হয়েছে বিতর্ক। যদিও কোলকাতা পুলিশ এই ঘটনা অস্বীকার করে জানিয়েছে পাগড়ি খোলা হয়নি। ধ্বস্তা ধ্বস্তিতে বলবিন্দর সিং এর পাগড়ি খুলে যায়। তবে যাই হোক ঘটনায় দেশ জুড়ে শুরু হয়েছে বিতর্ক। ক্রিকেটার হরভজন সিং স্বয়ং এই ঘটনার তীব্র নিন্দা করে সরব হয়েছেন।