অনিবাস দেঃ স্কুল খুলতেই তিন দিনে ৪২২ জন কোভিড পজিটিভ। এমনই এক বিপর্যয় সামনে এসেছে অন্ধ্রপ্রদেশে। 
অন্ধ্রের সরকারি স্কুলগুলোতে ২ নভেম্বরে নাইন এবং টেন-এর পড়ুয়াদের নিয়ে পঠনপাঠন শুরু করা হয়। মাত্র তিন দিন স্কুল চলে। তার মধ্যেই ২৬২ জন পড়ুয়া এবং ১৬০ জন শিক্ষক করোনা আক্রান্ত হয়ে পড়ার খবর পাওয়া যায়।
যদিও বিষয়টি নিয়ে সে রাজ্যের স্কুল এডুকেশন কমিশনার ততটা উদ্বেগ প্রকাশ করেননি। তাদের মতে রাজ্যের মোট ছাত্র-ছাত্রী এবং শিক্ষকদের সংখ্যার নিরিখে আক্রান্তের সংখ্যাটা খুবই সামান্য।
পরিসংখ্যান বলছে, নবম ও দশম শ্রেণি মিলিয়ে প্রায় দশলাখ ছাত্রছাত্রী। এর মধ্যে স্কুলে আসছে প্রায় চার লাখ। আবার ১ লাখ ১০ হাজার শিক্ষকদের মধ্যে ৯৯ হাজার শিক্ষক উপস্থিত থাকছেন। এই মোট সংখ্যার প্রেক্ষিতে আক্রান্ত পড়ুয়া বা শিক্ষকের সংখ্যা যথেষ্ট কম। স্কুল কমিশনারের মতে আর্থিক অভাবে দুর্বল ছাত্র-ছাত্রীরা অনলাইন ক্লাসের সুবিধা নিতে পারছে না। তাঁরা দীর্ঘদিন ধরে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। মূলত তাঁদের কথা ভেবেই স্কুল খুলবার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তবে পড়ুয়া এবং শিক্ষক উভয়েরই একসঙ্গে এভাবে কোভিড-আক্রান্ত হয়ে পড়ার ঘটনায় উদ্বিগ্ন স্বাস্থ্য দপ্তর এবং প্রশাসন। দেশের করোনা-পরিস্থিতি এখনো সম্পুর্ন নিয়ন্ত্রণে নয়। এই অবস্থায় স্কুল পুরোপুরি খুলে গেলে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে যাওয়াটাও স্বাভাবিক। সেই সাথে আবার পড়াশোনাও জরুরি। তবে প্রাণের ঝুঁকি নিয়ে পড়াশোনা ? – এই ভাবনাও ঘুরছে অভিভাবক মহলের একাংশের মনে।