মৃত্যুঞ্জয় রুহদ্রোঃ অবশেষে সকল জল্পনার অবসান ঘটিয়ে কলকাতায় এসে ভোটকৌশলী প্রশান্ত কিশোর এবং অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে বৈঠক করলেন শুভেন্দু অধিকারী। আপাতত দলেই থাকছেন শুভেন্দু। উল্লেখ্য গত সপ্তাহে মন্ত্রিসভা থেকে ইস্তফা দেন শুভেন্দু অধিকারী। তিনি দলত্যাগ করতে পারেন এমন কথাও শোনা যাচ্ছিল। রবিবার নাম না করে শুভেন্দুকে সরাসরি নিশানাও করেছিলেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। ফলে বিতর্ক ক্রমশ বাড়তে থাকে। তবে শেষপর্যন্ত পদত্যাগ দলত্যাগ পর্যন্ত গড়াল না। উত্তর কলকাতায় পিকে এবং অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের সাথে বৈঠকে বসেন শুভেন্দু অধিকারী। বৈঠকে ছিলেন আরও দুই প্রবীণ সাংসদ সৌগত রায় ও সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়। কারন এক সাংসদ ও পিকে-কে নিয়ে আপত্তি ছিল শুভেন্দু অধিকারীর। বৈঠকে সকল বিষয় নিয়ে আলোচনা হয় এবং মুখোমুখি আলোচনায় সমাধানসূত্রও মিলেছে বলে খবর। কীসের ভিত্তিতে এই সমাধান, তা এখনও অন্ধকারে। তবে বৈঠকে বন্ধুত্বপূর্ণ আলোচনা হয়েছে। নিজের ক্ষোভের কথাও জানিয়েছেন শুভেন্দু অধিকারী। আলোচনার রাস্তা খোলা ছিল বলে আগেই জানিয়েছিলেন সৌগত রায়। এখন শুধু শুভেন্দু অধিকারীর মন্ত্রিসভায় ফেরার অপেক্ষা? তবে এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনটি দফতর থেকে ইস্তফা দিয়েছেন শুভেন্দু। ওই দফতরগুলি নিজের হাতেই রেখেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। শুভেন্দুর জন্য দরজা খোলা রাখতেই হয়তো মন্ত্রকগুলো বণ্টন করা হয়নি। ফলে তাঁর মন্ত্রিত্বে ফেরা হয়তো সময়ের অপেক্ষা।